বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
গাইবান্ধায় দর্জি শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও সেলাই সামগ্রী বিতরন স্থানীয় সম্পাদকদের সাথে প্রেসক্লাব গাইবান্ধার মতবিনিময় ক্রেতা সেজে গাজা ব্যবসায়ীকে নিজেই গ্রেফতার করলেন ডিবির ওসি ভূয়া র‌্যাব পরিচয়ে প্রতারনা, যুবক গ্রেফতার রকি হত্যা মামলার প্রধান আসামী কাঞ্চন ও সোহাগ গ্রেফতার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিলেন আতোয়ার রহমান জাফরুল স্মৃতি সংসদ নাইট ফুটবল টুর্নামেন্টে শিরোপা জয়ী টিম মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড বোয়ালীর জনগনের সেবক হিসেবে কাজ করতে চান জাহিদ গাইবান্ধা পানি নিস্কাশন ড্রেন ও স্লাব নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন-হুইপ মা হারালেন সাংবাদিক সম্রাট!

‘ঘড়ির কাঁটা যতক্ষণ ঘুরবে; ততক্ষণ তোর মাইর থামবে না’

গাইবান্ধা প্রতিনিধি / ১৫৮ বার পঠিত
সময় : বুধবার, ৭ এপ্রিল, ২০২১, ১০:০৭ অপরাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আশরাফুল ইসলাম (২০) নামে এক রেস্টুরেন্ট শ্রমিকের শরীরে গরম ছ্যানি দিয়ে ছ্যাকা ও মারপিটের অভিযোগ উঠেছে মালিকের বিরুদ্ধে।

জীবন বাঁচাতে শ্রমিক আশরাফুল ইসলাম কোনমতে নিজ জেলা গাইবান্ধায় ফিরেছেন। বুধবার সকালে তাকে গুরুত্বর অবস্থায় গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এই অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে গত ৫ এপ্রিল ঢাকার ধানমন্ডি এলাকার মিতালী রোডের মিতালি টেলিকমের সামনের ১৭/এ নম্বর গেটের কিডস্ জি রেস্টুরেন্টে (অনলাইনে পার্সেল বিক্রি)। এই রেস্টুরেন্টের মালিকের নাম রহিত মিয়া।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে শ্রমিক আশরাফুল ইসলাম ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমাকে রুমের ভিতরে আটকায়া স্কেল আর কাঠের বাতি দিয়া বাড়াইছে (মারপিট)। হাতের মধে প্লাচ; নখের মধে বাঝে (আটকানো) দিছে। এরপর গরম ছ্যানি দিয়া ছ্যাকা দিছে। পরে বলে- বল তুই টাকা নিছিস।’

‘আমি টাকা নেই নাই এ কথা বলছি। হাতে পায়ে ধরছি মালিকের (রহিত মিয়া)। তখন সে বলে- ঘড়ির কাঁটা যতক্ষণ ঘুরবে; ততক্ষণ তোর মাইর থামবে না। জীবন বাঁচাতে আমি বলেছি, হ টাকা নিছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘তখন সে জোর করে সাদা কাগজে আমার স্বাক্ষর নিছে। এস্টেটম্যান নিছে; মাইরের ভিডিও করে নাই, করেছে স্বীকার করার কথাটা খালি। এরপর বলে, বাড়িতে যাইয়া কোন প্রকার সমস্যা করবা; তোমার ভিডিওটা ভাইরাল করে দেব।’

কিভাবে, কার মাধ্যমে ও কতদিন ধরে ওই রেস্টুরেন্টে কাজ নিয়েছেন এ প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমার বাড়ির পাশের রাকিব নামে একজন কাজ দিছে। আমি মাত্র চারদিন হলো সেখানে ঢুকছি (১ এপ্রিল)। আমি রুম ঝাড়ু দিতাম, একটু মোছা দিতাম আর ছাঁদের ফুল গাছে পানি দিতাম। ওনার দুটা ভাই আছে তাদের খাবারের পার্সেল আনি দিতাম। এগুলোই করতাম।’

আশরাফুল জানান, ‘রেস্টুরেন্ট থেকে গত ৫ এপ্রিল ৮ হাজার চুরির অপবাদ দেয়া হয় আশরাফুলকে। এ নিয়ে চাপ দেয়া হলে বিষয়টি অস্বীকার করেন শ্রমিক আশরাফুল। পরে তাকে কাঠ দিয়ে বেধরক মারপিট করা হয়। এরপর রেস্টুরেন্টের মালিক রুহিত মিয়া তার সহযোগী মিজানুরকে সাথে নিয়ে প্লাস দিয়ে তার হাতের নখ তুলে নেয়ার চেষ্টা করে। পরে গরম ছ্যানি দিয়ে তার শরীর বিভিন্ন স্থানে ছ্যাকা দেয়।’

তিনি আরও জানান, ‘রেস্টুরেন্টের মালিক রুহিত জোর করে তার ভিডিও জবানবন্দি ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন। পরে ৮ হাজার টাকা আশরাফুল বাড়িতে ফোন করে নিয়ে রুহিতকে দিয়ে ছাড়া পান।

শ্রমিক আশরাফুল ইসলামের বাড়ি গাইবান্ধা সদর  উপজেলার বোয়ালি ইউনিয়নের ফলিয়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের আজিজ মিয়া ছেলে। ঘটনার পর গতকাল ৬ এপ্রিল রাতে শরীরে ক্ষত নিয়ে অতিকষ্টে আশরাফুল গাইবান্ধার নিজ বাড়িতে ফেরেন।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার সুজন পাল বলেন, ‘রুগীর পিঠে ও হাতে গরম ছ্যাকার একাধিক চিহ্ন রয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা ভাল আছে। সবকিছু সেড়ে উঠতে দশ থেকে বার দিন টাইম লাগতে পারে।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজার রহমান বলেন, ‘যেহেতু ঘটনাস্থল ঢাকায়। তাই মামলা সেখানকার থানায় অথবা কোর্টে করতে হবে।’

ওসি আরও বলেন, ‘বিষয়টি জানার পর হাসপাতালে আশরাফুলের খোঁজ খবর নেয়া হয়েছে। এছাড়া তার সঠিক চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়া তার পরিবারকে সব ধরনের আইনি পরামর্শ দেয়া হয়েছে।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর