বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
গাইবান্ধায় দর্জি শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও সেলাই সামগ্রী বিতরন স্থানীয় সম্পাদকদের সাথে প্রেসক্লাব গাইবান্ধার মতবিনিময় ক্রেতা সেজে গাজা ব্যবসায়ীকে নিজেই গ্রেফতার করলেন ডিবির ওসি ভূয়া র‌্যাব পরিচয়ে প্রতারনা, যুবক গ্রেফতার রকি হত্যা মামলার প্রধান আসামী কাঞ্চন ও সোহাগ গ্রেফতার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিলেন আতোয়ার রহমান জাফরুল স্মৃতি সংসদ নাইট ফুটবল টুর্নামেন্টে শিরোপা জয়ী টিম মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড বোয়ালীর জনগনের সেবক হিসেবে কাজ করতে চান জাহিদ গাইবান্ধা পানি নিস্কাশন ড্রেন ও স্লাব নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন-হুইপ মা হারালেন সাংবাদিক সম্রাট!

গাইবান্ধায় কালবৈশাখীর গরম বাতাসে পুড়েছে ভুট্টাক্ষেত

জিহাদ হক্কানি, গাইবান্ধা / ১৯৬ বার পঠিত
সময় : শুক্রবার, ৯ এপ্রিল, ২০২১, ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কম খরচে ভাল ফলন ও লাভের আশায় গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার সৈয়দপুর চরাঞ্চলসহ জেলার অনাবাদি জমিতে ব্যাপক হারে এবার চাষ হয়েছে হাইব্রিড ভুট্টা। ফলন ভাল হলেও কৃষকদের স্বপ্ন ভেঙেছে হঠাৎ কালবৈশাখীর গরম বাতাস ও ঝড়ো হাওয়ায়।

গত ৪ এপ্রিল দুপুর থেকে শুরু হয় আকাশে কালো মেঘের আনাগোনা। পরে শুরু হয় তীব্র বাতাস, লন্ডভন্ড হয়ে যায় ঘরবাড়ি, গাছপালা, আবাদি জমি। সেই সাথে প্রায় ১ হাজার হেক্টর ভুট্টার ফসল নষ্ট হয় কৃষকের।

সরেজমিনে, ফুলছড়ি উপজেলার সৈয়দপুর চরাঞ্চল ও চরাঞ্চলে গিয়ে দেখা যায় এমন চিত্র।

ভুট্টা চাষে লাভের পরিবর্তে খরচের টাকাই তোলা দায় হয়ে পড়েছে কৃষকদের। হঠাৎ ঝড়ে স্বপ্নবাজ কৃষকদের বুক ভরা কষ্ট যেন দেখার কেউ নেই।

ভুট্টা চাষী নাহিদ বলেন, ‘আমার ৭ বিঘা জমিতে খরচ হয়েছে প্রায় ১ লক্ষ টাকা। ধার দেনা করে আবাদ করেছি এখন কিভাবে এই টাকা পরিশোধ করবো ভেবে পাচ্ছি না। ভুট্টা ছাড়াও বিভিন্ন তরি-তরকারিসহ অনেক ফসল গরম বাতাসে পুড়ে গেছে। আমাদের এখানে এখন পর্যন্ত সরকারের প্রতিনিধি খোঁজ নিতে আসে নাই।’

ভুক্তভোগী জমিলা বেগম বলেন, ‘আমারা কিভাবে বাঁচব ভেবে পাচ্ছি না। এখন ঘর বাড়ি রেখে পালাতে হবে; নইলে পাওনাদার এসে টাকার চাপ দিবে। সরকার থাকি যদি হামার (আমাদের) ঘরোক কোন সাহায্য করতো তাহলে একটু রেহাই পেতাম।’

কৃষক সাজু মিয়া বলেন, ‘আমার ৫২ বিঘা জমির ভুট্টা একবারে জ্বলে গেছে। কি করে সংসার চালাবো। ছেলে মেয়েদের নিয়ে থাকবো কি খাবো। আমরা চরাঞ্চলে বসবাস করি আমাদের দুঃখ দেখার কেউ নেই।

প্রতিবছর চরাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকায় শতশত বিঘা জমিতে ভুট্টার আবাদ হয়। প্রতি বিঘা জমিতে খরচ হয় ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা। উৎপাদন হয় ৪০ মণ ভুট্টা। খরচ কম; লাভ বেশি। তাই এ অঞ্চলের চাষিরা ব্যাপকভাবে ভুট্টার আবাদ করে থাকে। কিন্তু এ বছর কাল বৈশাখীর থাবায় কৃষকদের স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়েছে।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর