মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৩ অপরাহ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভয় দেখিয়ে প্রধান শিক্ষককে হুমকি; প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

মাসুম বিল্লাহ, বিশেষ প্রতিবেদক / ১০৮ বার পঠিত
সময় : বুধবার, ২৫ আগস্ট, ২০২১, ৫:১৮ অপরাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাইবান্ধা সদর উপজেলার মালিবাড়ি বোরহানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উন্নয়ণমূলক কাজ শুরু হওয়ার প্রথম দিনেই কোন কারণ ছাড়াই র‌্যাম ভাঙ্গার কাজ বন্ধ করে দেওয়ার পর, ভাইকে দিয়ে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাজাদী হাবিবা সুলতানাকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভয় দেখিয়ে হুমকি দেওয়ার প্রতিবাদ ও মতিউর রহমান রানার ওই বিদ্যালয়ের এডহক কমিটির সদস্যপদ বাতিল চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি গাইবান্ধা।
বুধবার (২৫ আগস্ট) বিকেলে গাইবান্ধা জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মারুফ হাসান বাবু তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, গাইবান্ধা সদরের মালিবাড়ি বোরহানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গাইবান্ধার জন্যস্বাস্থ্য বিভাগের বরাদ্দকৃত ওয়াশ ব্লকের কাজের জন্য র‌্যাম ভাঙ্গার কাজ শুরু হয়। ওই দিনই কাজ শুরু হওয়ার প্রায় দুই-তিন ঘন্টা পর অত্র বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য মতিয়ার রহমান রানা কাজে বাধা দেয় এবং বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম-পিয়ন ও কাজে নিয়োজিত শ্রমিককে গালিগালাজ ও হুমকী ধামকী দেয়। শুধু তাই নয়, মতিয়ার রহমান রানা অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাদী হাবিবা সুলতানার মোবাইলে ফোনে কোন কিছু জানতে না চেয়ে অবাঞ্চিত কথা বলে ও হুমকী দেয়।  বিষয়টি প্রধান শিক্ষক কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে এবং অনুমতি সাপেক্ষে গত সোমবার (২৪ আগষ্ট) পূনরায় কাজে নির্দেশনা দেয়।  কিন্তু, ওইদিন সকালেও আবারো প্রধান শিক্ষকের মোবাইল ফোনে স্বরাষ্ট মন্ত্রনালয়ের ভয় দেখিয়ে দেখে নেয়ার হুমকী দেয় রানার ছোট ভাই রিপন। তদুপরি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রধান শিক্ষকের নামে নানা প্রকার মিথ্যা তথ্য পোষ্ট করে। প্রশ্ন রয়েছে মতিউর রহমান রানার ওই বিদ্যালয়ের কমিটিতে দাতা সদস্য হিসেবে থাকার বৈধতা নিয়েও। নিয়মবহির্ভূত ভাবে পদটি দখল করে, বিগত এডহক কমিটিতে পরপর দুইবার সভাপতি পদে ছিলেন রানা। ২০১৮ সালেও তৃতীয় দফায় বিধি ভঙ্গ করে সভাপতি হতে চেয়েছিলেন রানা। কিন্তু বিধিমালা অনুযায়ী একজন ব্যক্তি দুই বারের বেশি সময় কোন প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হওয়ার সুযোগ না থাকায় সভাপতি হতে ব্যর্থ হয়ে কমিটির নামে আদালতে রিট পিটিশন মামলা দিলে আদালত কমিটির কার্যক্রম স্থগিত করে। বর্তমানে স্কুলটি আ্যাডহক কমিটি দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। অবিলম্বে দাতা সদস্যের পদ বাতিলসহ বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজে বাধা ও প্রধান শিক্ষককে হুমকী দেয়ার বিষয়টি তদন্ত করে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোড় দাবি জানান। শেষে মালিবাড়ি বোরহানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাদী হাবিবা সুলতানা সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। । সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির গাইবান্ধার নেতৃবৃন্দ, মালিবাড়ি বোরহানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাসহ বিভিন্ন শিক্ষক প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
bdpost71/আরএ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর