বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
গাইবান্ধায় দর্জি শিক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও সেলাই সামগ্রী বিতরন স্থানীয় সম্পাদকদের সাথে প্রেসক্লাব গাইবান্ধার মতবিনিময় ক্রেতা সেজে গাজা ব্যবসায়ীকে নিজেই গ্রেফতার করলেন ডিবির ওসি ভূয়া র‌্যাব পরিচয়ে প্রতারনা, যুবক গ্রেফতার রকি হত্যা মামলার প্রধান আসামী কাঞ্চন ও সোহাগ গ্রেফতার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিলেন আতোয়ার রহমান জাফরুল স্মৃতি সংসদ নাইট ফুটবল টুর্নামেন্টে শিরোপা জয়ী টিম মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড বোয়ালীর জনগনের সেবক হিসেবে কাজ করতে চান জাহিদ গাইবান্ধা পানি নিস্কাশন ড্রেন ও স্লাব নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন-হুইপ মা হারালেন সাংবাদিক সম্রাট!

সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের অনুষ্ঠান বয়কট করলো প্রধান অতিথিসহ ৫ সংগঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ২৭৯ বার পঠিত
সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ২:২৫ পূর্বাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাইবান্ধায় সদ্য গঠিত সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ নামে একটি সংগঠনের মাধ্যমে করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্থ সাংবাদিকদের প্রণোদনার অনুষ্ঠান বয়কট ঘোষণা করেছে প্রধান অতিথিসহ সাংবাদিকদের পাঁচটি সংগঠন।

বুধবার(১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলা পরিষদের হলরুমে আয়োজিত ঐ অনুষ্ঠানে প্রণোদনার টাকার উৎস ও বিভিন্ন সমন্বয়হীনতার কারণে জেলার তিনটি প্রেসক্লাব, রিপোটার্স ইউনিটির সাংবাদিকরাসহ ভিডিও জার্নালিষ্টরা আনুষ্ঠানিকভাবে এই অনুষ্ঠানটি বর্জন করে।

এরপরই, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ও প্রধান নির্বাহী আব্দুর রউফ তালুকদার কল্যাণ পরিষদের অসৎ উদ্দেশ্যের বিষয়টি জানতে পেরে অনুষ্ঠানে না যাওয়ার ঘোষণা দেন। সেই সাথে জেলা পরিষদ কর্তৃক সাংবাদিকদের করোনাকালীন প্রণোদনার অর্থ সঠিকভাবে বন্টন না করায় সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের কাছে টাকা ফেরৎ চেয়ে চিঠি দেওয়ার কথাও জানান।

এদিকে একই দিনে প্রেসক্লাব গাইবান্ধা জেলা পরিষদের হল রুমটি আলোচনার জন্য বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করলেও নিয়ম না মেনে জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদকে হলরুমটি বিনা টাকায় বরাদ্দ দেয়। পরে সন্ধ্যায় প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সাংবাদিকরা আলোচনায় অংশ নিয়ে এর তীব্র নিন্দা জানান।

জেলা পরিষদ সুত্রে জানা যায়, করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্থ সাংবাদিকদের জন্য জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ নামে একটি সংগঠনকে নিয়ম বর্হিভূতভাবে কয়েক দফায় মোটা অঙ্কের অর্থ  প্রদান করে। সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ জেলার মূল ধারার ক্ষতিগ্রস্থ সাংবাদিক,তিনটি প্রেসক্লাব, ফটো এ্যান্ড ভিডিও জার্নালিষ্ট এ্যাসোসিয়েশন এবং রিপোটার্স ইউনিটিকে বাদ দিয়ে কিছু সাংবাদিক এবং দুটি সংগঠনকে সেই (নাম উল্লেখ করা নাই) টাকা প্রদান করে। এর মধ্যে একটি সংগঠন সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের।

সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের এমন কর্মকান্ডকে ঘিরে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। জেলার সুশীল সমাজ ও সাংবাদিকরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। পাশাপাশি জেলা পরিষদের বরাদ্দকৃত অর্থ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। কি করে নতুন একটি সংগঠনকে জেলা পরিষদ এতগুলো টাকা বরাদ্দ দেয়?

গাইবান্ধা জেলা প্রেসক্লাবের(আব্বাস উদ্দিন টাওয়ার) সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, আমরা সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের অনুষ্ঠান আনুষ্ঠানিকভাবে বর্জন করেছি। পাশাপাশি জেলা পরিষদ কিভাবে, জেলার সাংবাদিকদের পুরাতন বড় বড় সংগঠনকে বাদ দিয়ে সদ্য জন্ম নেয়া সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ নামে একটি সংগঠনকে প্রণোদনা দেয়ার দায়িত্ব দেয়?

গাইবান্ধা ফটো এ্যান্ড ভিডিও জার্নালিষ্ট আ্যাসেসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ওবাইদুল ইসলাম জানান, সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের কার্যক্রম পছন্দ না হওয়ায় সাংগঠনিকভাবে তাদের অনুষ্ঠান আমরা বর্জন করেছি। পরে গাইবান্ধা পৌরপার্কে সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

জেলা রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি রেজাউন্নবী রাজু জানান, কল্যাণ পরিষদ নামে একটি সংগঠনের কথা ক দিন আগে শুনেছিলাম। তারা আমাকে ফোন করে আমার নামে একটি স্থানে চিঠি আছে বলে জানান। সেখান থেকে তা নিতে বলেন। এতেই প্রমাণিত হয় এই সংগঠনে কারা আছেন! তাদের উচিত ছিলো আমার সাথে অন্তত দেখা করা। কারন রিপোটার্স ইউনিটি গাইবান্ধা জেলার একটি ঐহিত্যবাহী সংগঠন। আমি সভাপতি হিসেবে এই সংগঠনের অনুষ্ঠান বর্জন করেছি এবং দাবি করছি এই সংগঠন অচিরেই বিলুপ্ত করার।

প্রেসক্লাব গাইবান্ধার(গোরস্থান মোড়) যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জাভেদ হোসেন জানান, ঐক্যের ডাক দিয়ে কিছু সংখ্যক নবীন এবং প্রবীণ সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ গঠন করে তাদের নিজেদের সংকীর্ণতা প্রকাশ করে যাচ্ছেন। এমনকি জেলা পরিষদের তহবিল থেকে সাংবাদিকদের প্রণোদনা দেওয়ার কথা বলে যে পরিমান অর্থ তারা উত্তোলন করেছে তা সম্পর্ণ নিজেদের মতামতের ভিত্তিতে। এবং মনগড়া সিদ্ধান্তে অনৈতিকভাবে লোক দেখানো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের মনোনিত ব্যক্তিকে অর্থ প্রদান করে জেলার সকল সাংবাদিক সংগঠন তথা সাংবাদিক সমাজকে বিতর্কিত করেছেন। আমি অতি সত্বর সাংবাদিকদের প্রণোদনার অর্থ জেলা পরিষদে ফিরিয়ে দিয়ে সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের বিলুপ্ত ঘোষণার জোড় দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে প্রেসক্লাব গাইবান্ধা(কাচারী বাজার) ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আবেদুর রহমান স্বপন জানান, সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদ আমাদের চিঠি দিয়েছিলো। তাৎক্ষনিকভাবে সভাপতি একটি মিটিং আহবান করে সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের প্রণোদনা না নেওয়ার ঘোষণা দেন। তিনি আরও বলেন, যেহেতু প্রণোদনার অর্থায়ন করেছে জেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ আমাদের প্রণোদনা দিলে আমরা নিতাম। কল্যাণ পরিষদের মাধ্যমে প্রণোদনা না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এছাড়াও সাংগঠনিক সিদ্ধান্তের বাহিরে কেউ যদি কল্যাণ পরিষদের অনুষ্ঠানে যেয়ে থাকে তাদের ব্যাপারে প্রেসক্লাব পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নিবে।

সদ্য জন্ম নেয়া বিতর্কিত সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের মাধ্যমে সাংবাদিকদের প্রণোদনার টাকা দেয়ার কারণ জানতে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতাকে একাধিকবার ফোন করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বিডিপোষ্ট৭১/জেএইচ,আর এ

সংবাদটি শেয়ার করুন


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর