মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

রকি হত্যা, ৩ দিনের রিমান্ডে গুরুত্বপুর্ন তথ্য দিয়েছে রবিন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ / ৩৬৮ বার পঠিত
সময় : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১, ৬:০৭ অপরাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি হত্যা মামলার অন্যতম আসামি গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিনকে তিন দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) বিকেলে গাইবান্ধা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক নজরুল ইসলাম এ আদেশ দেন।

এর আগে ৩ অক্টোবর(রবিবার) রাতে রকি হত্যার এজাহারনামীয় আসামি ইমরানের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে রবিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরদিন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম।

রকি হত্যায় সরাসরি অংশ নেওয়া আসামি ইমরান গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে রবিনের জড়িতের বিষয়ে নানা তথ্য জানায়। অথচ হত্যা ঘটনার পর জেলাজুড়েই বিচারের দাবিতে আন্দোলন কর্মসূচিতে রবিনেরই সক্রিয় ভূমিকা ছিলো। তবে রকি হত্যাকান্ডে নিজ দলেরই নেতা (জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক) রবিনের সম্পৃক্ততার ঘটনা জানাজানির পর নানা আলোচনাসহ নতুন রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও হত্যার পর থেকেই দলীয় কোন্দল ও প্রভাব বিস্তারের জেরেই পরিকল্পিতভাবে রকিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বলে দাবি করছিলেন স্বজন, রাজনৈতিক নেতাসহ এলাকাবাসী।

হত্যার পর ছাত্রলীগ নেতা রবিন একাধিক বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে অংশ নিয়ে হত্যাকারীদের গ্রেফতারে বক্তব্য দেয়। এমনকি বুকে প্লেকার্ড ঝুলিয়ে রকি হত্যার বিচার চাইতেও দেখা যায় তাকে। কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া একাধিক ছবি রবিন তার ফেসবুকে পোষ্ট করাসহ শোক বার্তা বিভিন্নজনের কাছেও ছড়িয়ে দেন। গত ১১ জুলাই রাতে হত্যা ঘটনার পর থেকেই রবিন নানা কৌশলে নিজেকে আড়াল করেন। ফলে হত্যাকা-ের আড়াই মাস ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায় রবিন। কিন্তু এসব চেষ্টা-কৌশলেও তার শেষ রক্ষা হয়নি। গত ৩ অক্টোবর গভীর রাতে পৌর শহরের পূর্বপাড়ার নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রবিন ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান হাসুর ছেলে। দীর্ঘদিন ধরেই রবিন মাদক, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্মে জড়িত। একাধিক অভিযোগ ছাড়াও সদর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে।

গাইবান্ধার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি তদন্ত) আব্দুর রউফ জানান, রকি হত্যার ঘটনায় তিন দিনের রিমান্ডে থাকা রবিনের কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ন তথ্য পাওয়া গেছে। তথ্যগুলো যাচাই বাচাই চলছে।

প্রসঙ্গত : গত ১১ জুলাই মায়ের ঔষধ নিয়ে বাড়ি ফেরার সময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে গাইবান্ধা জেলা শহরের পূর্বপাড়ার হালিম বিড়ি ফ্যাক্টরির সামনে আশিকুর রহমান রকির ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। পরে তারা রকিকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন গুরুত্বর অবস্থায় রকিকে উদ্ধার করে গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় পরদিন ১২ জুলাই দুপুরে নিহতের বড় ভাই আতিকুর রহমান সরকার বাদী চারজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত পরিচয় আরও ৭/৮ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা করেন।

 

বিডিপোষ্ট৭১/ আরএ/ ৭ অক্টোবর

 

সংবাদটি শেয়ার করুন


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর