রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
আদালতের আদেশ অমান্য করে নির্মানাধীন ইটভাটার কাজ করছেন আয়ান উদ্দিন সুন্দরগঞ্জের কাপাশিয়ায় নদী ভাঙ্গন রক্ষায় সিসি ব্লক তৈরিতে অনিয়মের অভিযোগ এশিয়ান টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কম্বল বিতরন গাইবান্ধায় এশিয়ান টিভির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত মামলা থেকে বাঁচতে বিজয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ গাইবান্ধায় আয়ান উদ্দিনের অবৈধ ইট ভাটা বন্ধ করে দিল প্রশাসন পিঠা উৎসবে তরুণ-তরুণী আর পিঠা রসিকদের উপচে পড়া ভিড় এফবিসিসিআই থেকে দূর্নীতি মামলার আসামী মোরসালিন পারভেজের অপসারণ দাবি কর্তব্য অবহেলার অভিযোগে চেম্বার সভাপতিকে লিগ্যাল নোটিশ গাইবান্ধায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ , আহত ৫

দোকানে তালা দিলেন এসিল্যান্ড, খুললেন ব্যবসায়ী নেতারা

ডেক্স রিপোর্ট / ২১৫ বার পঠিত
সময় : সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:৫৩ অপরাহ্ণ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গাইবান্ধা শহরের ষ্টেশন রোডের এককালীন পজেশনকৃত গ্রামীণ সুজ নামে একটি দোকানে এসিল্যান্ড কর্তৃক তালা দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে কিছুক্ষণ পরেই ব্যবসায়ী নেতারা এসে তালা খুলে দিয়েছেন।

রোববার(৬ ডিসেম্বর) বিকেলে এককালীন পজেশন ভাড়াটিয়া জুতা ব্যবসায়ী কাজী আব্দুল ওয়াদুদ বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান।

তিনি বলেন, আমার বাবা মৃত কাজী কছিম উদ্দিন মরহুমা খোতেজা বেগমের কাছ থেকে ১৯৬৯ সালে ঐ দোকানঘরটি  এককালীন পজেশন নেয়। এরপর থেকে আমার বাবা এবং পরে আমি ব্যবসা চালিয়ে আসছি এবং নিয়মিত রশিদ মূলে ভাড়া পরিশোধ করে আসছি। কিছুদিন থেকে মালিক  পক্ষের রেজাউল করিম ও তার জামাতা সবুজ মিয়া এবং তার ছেলে শুভসহ কয়েকজন দোকান ছাড়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। এছাড়াও বিভিন্ন সময় হুমকী ধামকী দেয় এবং দোকান কর্মচারীদের সাথে খারাপ আচরন করে।  পরে চলতি বছরের ৩১ মে সিনিয়র জর্জ কোর্টে ঐ ঘরটি থেকে আমাকে সড়ানোর জন্য উচ্ছেদের মামলা দেয়(মামলা নং-২/২১)। এই মামলা চলাকালে রেজাউল করিম অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৪৪/১৪৫ ধারা জারির জন্য আবেদন করে। আদালত সংশ্লিষ্ট তহশিলদারকে ঘটনাটি ক্ষতিয়ে দেখার জন্য নির্দেশ দেয়। পরে সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা নাহিদুর রহমান (এ্যাসিল্যান্ড) গত বৃহস্পতিবার আমার দোকানে গিয়ে কাগজ পত্র না দেখে দোকান বন্ধ করে তালা দেয়। পরে  ব্যবসায়ী নেতারা এসে আমার দোকানের তালা খুলে দেয়। আমি বিভিন্নভাবে হয়রানির স্বীকার হয়েছি। আমি এ ঘটনার প্রতিকার চাই।

এ ব্যাপারে রেজাউল করিমের জামাতা সবুজ মিয়া বলেন, আমার শ্বশুর রেজাউল করিমের কাছ থেকে দোকান ভাড়া নেয় কাজী আব্দুল ওয়াদুদ। তিনি নিয়মিত ভাড়া পরিশোধ না করে উল্টো মালিক পক্ষকে হুমকী-ধামকী দিচ্ছে এবং দোকান কর্মচারীদের দিয়ে আমাদের মারধরও করেছে। প্রয়োজনে আমাদের দোকান আমরা ব্যবহার করতে পারবো না এটা কেমন কথা। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই।

তহসিলদার সাইদুর রহমান জানান, আদালতের পাঠানো কোন পত্র আমার কাছে আসেনি। এ বিষয়টি আমার জানা নেই।

গাইবান্ধা সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) বাপী জানান, আদালত থেকে ১৪৪/১৪৫ ধারার বিষয়ে আদালত যে নির্দেশনা সেই অনুযায়ী বিশৃঙ্খলা এড়াতে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।

সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা জানান, ঐ জায়গাটির বিষয়ে আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। দোকান মালিক আদালতে ১৪৪ ও ১৪৫ ধারার আবেদন করলে আদালত ঐ জায়গাটির প্রকৃত ঘটনা জানতে নির্দেশ দেয়। শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য সাময়িকভাবে দোকানে তালা লাগানো হয়। পরে ঐ খানে কি ঘটেছে আমি জানিনা।

 

bdpost71/ আরএ

সংবাদটি শেয়ার করুন

 


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসুবকে আমরা

এক ক্লিকে বিভাগের খবর